মাথাভাঙায় প্রত্যেক রবিবার অফিস করবেন শিতলখুচীর বিধায়ক বরেন চন্দ্র বর্মন

260 Views

নিজস্ব প্রতিনিধি,মাথাভাঙা: মাথাভাঙার বিধায়ক সুশিল বর্মনের পর শিতলখুচী বিধানসভার বিজেপি বিধায়ক বরেন চন্দ্র বর্মন। কার্যত পৌর ভোটকে পাখির চোখ করে মাথাভাঙা শহরে ঘাঁটি গাড়লেন। মাথাভাঙা ও শিতলখুচীর বিজেপির দুই বিধায়ক। মাথাভাঙা শহর ও সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের অসুবিধা ও শিতলখুচী বিধানসভা কেন্দ্রের নয়ারহাট গোপালপুর এলাকার সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে মাথাভাঙা শহরে প্রত্যেক রবিবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত নাগরিকদের পরিষেবা জন্য শহরের থানা পাড়ায় বিজেপির লিগ্যাল সেলের জেলা কনভেনার কৌশিক ভদ্রের বাড়িতে অফিস করবেন ২টার পর থেকে বরেন বাবু। শিতলখুচীর বিধায়ক বরেন বাবুর বাড়ি লালবাজার গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। এদিন বরেন চন্দ্র বর্মন জানান,’ অনেকদিন আগেই এই অফিস খোলার কথা ছিল বিভিন্ন কারনে হয়ে উঠেনি।আজ থেকে এই অফিসের পথ চলা শুরু হল।বিভিন্ন সময়ে ছাত্র ছাত্রী থেকে শুরু করে অনান্য নাগরিকদের বিভিন্ন কাজে বিধায়কের স্বাক্ষরের প্রয়োজন পড়ে।যার জন্য তাদের ছোটাছুটি করতে হয় বিধায়কের বাড়িতে। তাই সাধারণ মানুষকে পরিষেবা দিতে মাথাভাঙা শহরের প্রান কেন্দ্রে আপাতত প্রত্যেক রবিবার শহরে উপস্থিত থেকে সাধ্যমতো সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করব।’উত্তরবঙ্গের উন্নয়ণ সম্ভব সেই মানুষের দাবিকে আমি সমর্থন করি ।’ বিধায়কের অভিযোগ, ‘ বিজেপি করায় একশো দিনের কাজ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে গরীব মানুষকে । দেওয়া হচ্ছে না সরকারি প্রকল্পের ঘর । ‘ অপরদিকে দলবদল প্রসঙ্গে বলেন , ‘ভারতীয় জনতা পার্টি করতে গেলে ত্যাগ স্বীকার করতে হয় । তাই যারা দল ছাড়ছেন তা ব্যক্তি স্বার্থেই করছেন । এদিন মাথাভাঙায় বিধায়কের অফিসে উপস্থিত ছিলেন শহরের বিজেপি নেতা মনোজ ঘোষ, দিলীপ মন্ডল প্রমুখ ।
দুই বিধায়কের এই কর্মসূচি কার্যত পৌর ভোটকে পাখির চোখ করেই নেওয়া হয়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয় রাজনৈতিক মহল । যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!